ইসলামে সহবাসের নিয়ম pdf

 

ইসলামে সহবাসের নিয়ম pdf
ইসলামে সহবাসের নিয়ম pdf

ইসলামে সহবাসের নিয়ম pdf

ইসলামী শরিয়ত অনুযায়ী বিবাহের মাধ্যমে নারী-পুরুষের সহবস্থান জায়েজ বলে পরিগণিত হয়। তাঁদের ২ জনের মিলনের মাধ্যমে বংশ বৃদ্ধি পায়। ইসলাম যেহেতু পূর্ণাঙ্গ জীবন বিধান, তাই সহবাসের উত্তম পদ্ধতি কি? এই বিষয়েও ইসলামে সঠিক এবং স্পষ্ট নির্দেশনা রয়েছে। আজ সহবাসের সুন্নাত তরিকা, আদব ও বিধিনিষেধ সমূহ সম্পর্কে আলোচনা করবো- 


সহবাসের সুন্নাত তরিকা 

১) সংগম শুরু করার পূর্বে নিয়ত সঠিক করে নেওয়া; এই নিয়ত করা যে, এই হালাল পন্থায় যৌন চাহিদা পূ্র্ণ করার দ্বারা হারামে পতিত হওয়া থেকে রক্ষা পাওয়া যাবে, তৃপ্তি লাভ হবে এবং তার দ্বারা কষ্ট সহিষ্ণু হওয়া যাবে, ছাওয়া হাছিল হবে এবং সন্তান লাভ হবে। 

২) পর্দা ঘেরা স্থানে সংগম করা। অর্থাৎ খুলা স্থানে সহবাস না করা। 

৩) সংগম শুরু করার পূর্বে চুম্বন, স্তন মর্দন ইত্যাদি করা। 

৪) বিসমিল্লাহ বলে শুরু করা।

৫) শয়তান থেকে মুক্তি চাওয়া। 

৬) সংগম শেষ পেশাব করে নেওয়া। 

৭) সংগমের পর যত তাড়াতাড়ি সম্ভব গোসল করে নেওয়া। অন্ততঃ অজু করে নেওয়া।

৮) সংগমের পর কিছুক্ষণ ঘুমানো। 

৯) জুমার দিন সংগম করা মুস্তাহাব।


আদব

১)বীর্য, যৌনাঙ্গের রস ইত্যাদি মুছার জন্যে এক টুকরো কাপড় রাখা। 

২) সংগম অবস্থায় বেশি কথা না বলা। 

৩) সংগম অবস্থায় স্ত্রীর যোনীর দিকে নজর না দেওয়া। যদিও হযরত ইবনে ওমর (রাঃ) সংগম অবস্থায় স্ত্রীর যোনীর দিকে দৃষ্টি দেওয়া উত্তেজনা বৃদ্ধির সহায়ক বিধায় এটাকে উত্তম বলতেন। 

৪) এক সংগমের পর পুনর্বার সংগমে লিপ্ত হতে চাইলে যৌনাঙ্গ এবং হাত ধুয়ে নিতে হবে।

৫) স্বপ্নদোষের পর সংগম করতে হলে পেশাব করে নিবে এবং যৌনাঙ্গ ধুয়ে নিবে। 


বিধিনিষেধ সমূহ 

১) কোন শিশু, পশুর সামনে সংগমে লিপ্ত না হওয়া। 

২) বীর্যপাতের পর পরই স্বামীর নেমে না যাওয়া বরং স্ত্রীর উপর অপেক্ষা করা, যেন স্ত্রীও তার খাহেশ পূর্ণ মাত্রায় মিটিয়ে নিতে পারে। 

৩) সংগমের বিষয় কারও নিকট প্রকাশ করা নিষেধ। এটা একদিকে নিলজ্জতা, অন্যদিকে স্বামীর/স্ত্রীর হক নষ্ট করা। 


আল্লাহ তা'য়ালা আমাদের সঠিক বিষয় মেনে চলা এবং নিষেধ থেকে বিরত থাকার তাওফিক দান করুন। 

স্ত্রী সহবাসের ইসলামিক নিয়ম,সহবাস করার ইসলামিক নিয়ম,সহবাসের ইসলামিক নিয়ম,সহবাসের সঠিক নিয়ম কি,স্ত্রী সহবাসের সঠিক নিয়ম,সহবাসের নিয়ম কানুন,সহবাসের নিয়ম পদ্ধতি,সহবাসের নিয়ম pdf,ইসলামে সহবাসের সঠিক নিয়ম,সহবাস করার নিয়ম পদ্ধতি,ইসলামের দৃষ্টিতে স্বামী স্ত্রী সহবাসের সঠিক নিয়ম,সহবাসের নিয়ম,সহবাস করার ইসলামিক পদ্ধতি,সহবাসের নিয়ম ও পদ্ধতি,সহবাসের সঠিক নিয়ম,হাদীসের আলোকে সহবাসের নিয়ম,ইসলামের দৃষ্টিতে সহবাসের দোয়া,সহবাস,হাদিস অনুযায়ী সহবাসের নিয়ম

Download

.

ইসলামে স্বামী-স্ত্রী সহবাসের নিয়ম ও পদ্ধতি

ইসলামে মানব জীবনের সকল বিধি-বিধান রয়েছে। স্বামী-স্ত্রীর যৌন মিলনের জন্যে সঠিক নিয়ম দেওয়া আছে। কিভাবে সহবাস করতে হবে, কিভাবে সহবাস করা হারাম, কখন সহবাস করা নিষিদ্ধ ইত্যাদি নিয়ম বা পদ্ধতিগুলো কুরআন এবং হাদিসে বর্ণনা করা হয়েছে। ইসলাম দাম্পত্য জীবনকে মধুর ও রোমান্টিক করতে উৎসাহিত করেছে।


সহবাসের শুরুতে নিয়ত করা

আরবিতে নিয়ত করতে হবে এমনটা নয়। নিয়ত মানে মনোস্থির করা। মনে মনে এই কামনা করা যে, আমি সাওয়াব অর্জনের উদ্দেশ্য আল্লাহর সন্তুষ্টির জন্যে সহবাস করবো। এর মাধ্যমে নিজেকে হারাম থেকে বিরত রাখবো এবং সন্তান লাভের আশা থাকবে। হাদিসে আছে, স্ত্রী সহবাসও সাদকা। এর মাধ্যমে সাওয়াব বা নেকি লাভ করা যায়।


সহবাসের সময় আদর-সোহাগ করা

ইসলামে সহবাসের সময় স্বামী-স্ত্রী একে অপরকে আদর করার কথা বলা হয়েছে। হাদিসে এই আদর সোহাগের ব্যাপারে উৎসাহিত করা হয়েছে। যৌন মিলনকে মধুর করতে যত উপায় আছে যেকোনভাবে তা করা যাবে। স্বামী চুম্বন, আলিঙ্গন, মর্দন ইত্যাদির মাধ্যমে স্ত্রীকে আদর করবে। তেমনি স্ত্রীও স্বামীকে আদর-সোহাগ করবে। এক্ষেত্রে উভয়ের Response বা সাড়া দেওয়া খুবই জরুরী। একে অপরকে মিলনের জন্য আগ্রহী করে তুলবে।


দাম্পত্য জীবনে Romantic Sexual Relations থাকা খুবই প্রয়োজন। এতে করে সম্পর্ক গভীর হয়। অন্যথায় শয়তান খারাপ পথে নিয়ে যায় যা ডিভোর্সের কারণ হতে পারে।


সহবাসের সময় দোয়া করা

শয়তান মানুষের রক্তের শিরা-উপশিরায় অবস্থান করতে পারে। এইজন্যে সহবাসের সময় দোয়া করতে হয়। স্বামী-স্ত্রী মিলনের আগে যে দোয়া পড়তে হয়-


بِسْمِ اللّهِ اللّهُمَّ جَنِّبْنَا الشَّيْطَانَ وَ جَنِّبِ الشَّيْطَانَ مَا رَزَقْتَنَا


উচ্চারণ : ‘বিসমিল্লাহি আল্লাহুম্মা জান্নিবনাশ শায়ত্বানা ওয়া জান্নিবিশ শায়ত্বানা মা রাযাক্বতানা।


’অর্থ : ‘হে আল্লাহ! তোমার নামে (যৌন মিলন বা সহবাস) আরম্ভ করছি, তুমি আমাদের (স্বামী-স্ত্রী উভয়ের) কাছ থেকে শয়তানকে দূরে রাখ। আমাদের এ মিলনের ফলে যে সন্তান দান করবেন, সে সন্তানকেও শয়তান (যাবতীয় আক্রমণ) থেকে দূরে রাখ।


রাসূলুল্লাহ (সাঃ) বলেছেন, এরপরে যদি তাদের দু’জনের মাঝে কিছু ফল দেয়া হয় অথবা বাচ্চা পয়দা হয়, তাকে শয়তান কখনো ক্ষতি করতে পারবে না। (বুখারী ৪৭৮৭)


ইসলামে সহবাসের পজিশন

نِسَآؤُکُمۡ حَرۡثٌ لَّکُمۡ ۪ فَاۡتُوۡا حَرۡثَکُمۡ اَنّٰی شِئۡتُمۡ ۫ وَ قَدِّمُوۡا لِاَنۡفُسِکُمۡ ؕ وَ اتَّقُوا اللّٰہَ وَ اعۡلَمُوۡۤا اَنَّکُمۡ مُّلٰقُوۡہُ ؕ وَ بَشِّرِ الۡمُؤۡمِنِیۡنَ


অর্থ- তোমাদের স্ত্রী তোমাদের ফসলক্ষেত্র। সুতরাং তোমরা তোমাদের ফসলক্ষেত্রে গমন কর, যেভাবে চাও। আর তোমরা নিজদের কল্যাণে উত্তম কাজ সামনে পাঠাও। আর আল্লাহর তাকওয়া অবলম্বন কর এবং জেনে রাখ, নিশ্চয় তোমরা তাঁর সাথে সাক্ষাৎ করবে । আর মুমিনদেরকে সুসংবাদ দাও।(সূরা বাক্বারা-২২৩)


সহবাসের পদ্ধতি সম্পর্কে সরাসরি কোন বিধি নিষেধ নেই। দাঁড়িয়ে, বসে, শুয়ে, কাত হয়ে, সামনে থেকে, পিছন থেকে যেভাবে ইচ্ছা সেভাবে সহবাস করা যাবে। তবে শর্ত হচ্ছে তা যৌনিপথে করতে হবে।


কিছু বর্ণনায় স্বামী উপরে আর স্ত্রীকে নিচে থাকার কথা বলা হয়েছে। ইহা সুবিধাজনক ও প্রশান্তিদায়ক এবং উত্তম। তবে বাধ্যতামূলক নয়। আর স্ত্রী যদি উপরে থাকে আর স্বামী যদি নিচে থাকে এতে গুনাহের কিছু নেই। কিন্তু সতর্ক থাকতে হবে এই পজিশনে বীর্যপাত হলে বীর্য আটকে কষ্টের কারণ হতে পারে।


পজিশনের কারণে সন্তান বিকলাঙ্গ হবে এ কথা ভিত্তিহীন। এ কথার ইসলামী শরিয়তে এবং বৈজ্ঞানিক কোন ভিত্তি নেই।

যেভাবে স্ত্রী সহবাস করা হারাম

ইসলামে স্ত্রীর সাথে পায়ুপথে(Anal sex) সহবাস করা হারাম করেছে। হাদিসে আছে, ‘যে ব্যক্তি মলদ্বারে সঙ্গম করে আল্লাহ তার দিকে দয়ার দৃষ্টিতে তাকান না।’ পায়ুপথ বা মলদ্বারে সহবাস করে ফেললে গোনাহগার হবে। এইজন্যে তওবা করতে হবে। এছাড়াও পায়ুপথে সহবাস করলে রোগ ব্যাধি হওয়ার সম্ভাবনা থাকে।


ইসলামে সহবাসের নিষিদ্ধ সময়

এমন কিছু সময় আছে যখন সহবাস করা হারাম। এই নিষিদ্ধ সময়(Prohibited time) সহবাস করলে গোনাহগার হবেন। ইসলাম এই সময়গুলোতে নিজেদেরকে সহবাস থেকে বিরত রাখার কথা বলেছে। কেউ যদি সঙ্গম করে ফেলে তার জন্য তওবা করতে হবে এবং কাফফারা আদায় করতে হবে।


১. স্ত্রীর মাসিকের সময়

স্ত্রী যখন ঋতুবতী অবস্থায় থাকে তখন যৌন মিলন করা যাবে না। তাই মাসিকের সময়(menstruation time) সহবাস করা হারাম। আল্লাহ তায়ালা পবিত্র কুরআনে বলেছেন-


وَ یَسۡـَٔلُوۡنَکَ عَنِ الۡمَحِیۡضِ ؕ قُلۡ ہُوَ اَذًی ۙ فَاعۡتَزِلُوا النِّسَآءَ فِی الۡمَحِیۡضِ ۙ وَ لَا تَقۡرَبُوۡہُنَّ حَتّٰی یَطۡہُرۡنَ ۚ فَاِذَا تَطَہَّرۡنَ فَاۡتُوۡہُنَّ مِنۡ حَیۡثُ اَمَرَکُمُ اللّٰہُ ؕ اِنَّ اللّٰہَ یُحِبُّ التَّوَّابِیۡنَ وَ یُحِبُّ الۡمُتَطَہِّرِیۡنَ

অর্থ- আর তারা তোমাকে হায়েয(মাসিক) সম্পর্কে প্রশ্ন করে। বল, তা কষ্ট। সুতরাং তোমরা হায়েযকালে স্ত্রীদের থেকে দূরে থাক এবং তারা পবিত্র না হওয়া পর্যন্ত তাদের নিকটবর্তী হয়ো না। অতঃপর যখন তারা পবিত্র হবে তখন তাদের নিকট আস, যেভাবে আল্লাহ তোমাদেরকে নির্দেশ দিয়েছেন। নিশ্চয় আল্লাহ তাওবাকারীদেরকে ভালবাসেন এবং ভালবাসেন অধিক পবিত্রতা অর্জনকারীদেরকে।(সূরা বাকারা- ২২২)

হাদিসেও এ ব্যাপারে কঠোরভাবে নিষেধ করা হয়েছে। এছাড়া এসময় সহবাস করলে রোগ-ব্যাধি হওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

২. রোজা থাকা অবস্থায়

اُحِلَّ لَکُمۡ لَیۡلَۃَ الصِّیَامِ الرَّفَثُ اِلٰی نِسَآئِکُمۡ ؕ ہُنَّ لِبَاسٌ لَّکُمۡ وَ اَنۡتُمۡ لِبَاسٌ لَّہُنَّ ؕ عَلِمَ اللّٰہُ اَنَّکُمۡ کُنۡتُمۡ تَخۡتَانُوۡنَ اَنۡفُسَکُمۡ فَتَابَ عَلَیۡکُمۡ وَ عَفَا عَنۡکُمۡ ۚ فَالۡـٰٔنَ بَاشِرُوۡہُنَّ وَ ابۡتَغُوۡا مَا کَتَبَ اللّٰہُ لَکُمۡ ۪ وَ کُلُوۡا وَ اشۡرَبُوۡا حَتّٰی یَتَبَیَّنَ لَکُمُ الۡخَیۡطُ الۡاَبۡیَضُ مِنَ الۡخَیۡطِ الۡاَسۡوَدِ مِنَ الۡفَجۡرِ۪ ثُمَّ اَتِمُّوا الصِّیَامَ اِلَی الَّیۡلِ ۚ وَ لَا تُبَاشِرُوۡہُنَّ وَ اَنۡتُمۡ عٰکِفُوۡنَ ۙ فِی الۡمَسٰجِدِ ؕ تِلۡکَ حُدُوۡدُ اللّٰہِ فَلَا تَقۡرَبُوۡہَا ؕ کَذٰلِکَ یُبَیِّنُ اللّٰہُ اٰیٰتِہٖ لِلنَّاسِ لَعَلَّہُمۡ یَتَّقُوۡنَ

অর্থ- সিয়ামের রাতে তোমাদের জন্য তোমাদের স্ত্রীদের নিকট গমন হালাল করা হয়েছে। তারা তোমাদের জন্য পরিচ্ছদ এবং তোমরা তাদের জন্য পরিচ্ছদ। আল্লাহ জেনেছেন যে, তোমরা নিজদের সাথে খিয়ানত করছিলে। অতঃপর তিনি তোমাদের তাওবা কবূল করেছেন এবং তোমাদেরকে ক্ষমা করেছেন। অতএব, এখন তোমরা তাদের সাথে মিলিত হও এবং আল্লাহ তোমাদের জন্য যা লিখে দিয়েছেন, তা অনুসন্ধান কর। আর আহার কর ও পান কর যতক্ষণ না ফজরের সাদা রেখা কাল রেখা থেকে স্পষ্ট হয়। অতঃপর রাত পর্যন্ত সিয়াম পূর্ণ কর। আর তোমরা মাসজিদে ইতিকাফরত অবস্থায় স্ত্রীদের সাথে মিলিত হয়ো না। এটা আল্লাহর সীমারেখা, সুতরাং তোমরা তার নিকটবর্তী হয়ো না। এভাবেই আল্লাহ তাঁর আয়াতসমূহ মানুষের জন্য স্পষ্ট করেন যাতে তারা তাকওয়া অবলম্বন করে।(বাকারা-১৮৭)

রোজা থাকা অবস্থায় সহবাস করা হারাম। তবে রমজান মাসে রাত্রি বেলায় সহবাস করা যাবে। দিনের বেলায় সহবাস করা নিষিদ্ধ। ইচ্ছাকৃতভাবে কেউ সঙ্গম করে ফেললে তাওবা করতে হবে এবং কাযা, কাফফারা আদায় করতে হবে।

এছাড়াও যে সময় সহবাস করা নিষিদ্ধ। তাহলোঃ

ইত্তেকাফের সময়,

হজ্জের ইহরাম বাঁধা অবস্থায়,

স্ত্রীর গর্ভপাতের ৪০ দিন সময় পর্যন্ত

উপরোক্ত সময়গুলো ছাড়া অন্যযেকোন সময় যৌন মিলন করা যাবে। এক্ষেত্রে পূর্ণিমা, আমাবস্যা, দিনের বেলা, শুক্রবার, ঈদের দিনে, ঈদের রাতে, শবে বরাতে, শবে কদরের রাতে ইত্যাদি সময় সহবাস করা যাবে এবং তা বৈধ বা হালাল। এতে কোনো ক্ষতি বা গোনাহ হবে না।

স্ত্রী সহবাসের পর ফরজ গোসলের নিয়ম

সহবাসের পর গোসল(Bath after sex) করতে হয়। এক্ষেত্রে কথা হচ্ছে বীর্যপাত হলে গোসল ফরজ। আবার বীর্যপাত ছাড়াও যদি স্ত্রীর লাজ্জাস্থানে সঙ্গম করা হয় তাহলেও গোসল ফরজ হয়ে যাবে। যৌন মিলনের পরেই দ্রুত গোসল করে নেওয়া উত্তম। পরে করলেও সমস্যা নেই। তবে নামাজের পূর্বে অবশ্যই গোসল করে নিতে হবে।এক্ষেত্রে ইসলামে ফরজ গোসলের নিয়ম পালন করতে হবে। এই গোসল স্বামী ও স্ত্রী উভয়ের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য।

সহবাস স্বামী-স্ত্রীর মধু মিলন। স্বামী স্ত্রী উভয়ের শারীরিক ও মানসিক অবস্থা বুঝে যৌন মিলন করা উচিত। এক্ষেত্রে প্রত্যেক মুসলিমকে অবশ্যই ইসলামিক নিয়ম মানতে হবে। আল্লাহ পাক আমাদেরকে সঠিক নিয়মে সহবাস করার তৌফিক দান করুন। আমীন



More Bangla PDF Books Download

আল কোরআন বাংলা অনুবাদ সহ বই ব্যবসা সংক্রান্ত বই pdf download লাভ ম্যারেজ বই pdf আই লাভ ইউ বই pdf download ব্যতিক্রম সাজেশন pdf download জীবন জাগার গল্প pdf আতিক উল্লাহ বই pdf রাসুল সাঃ এর জীবনী pdf বিয়ের আগে ও পরে বই pdf download আদর্শ বিবাহ ও দাম্পত্য pdf ইসলামে সহবাসের নিয়ম pdf বিশ্ব রাজনীতির ১০০ বছর pdf পাশ্চাত্য রাষ্ট্রচিন্তার ইতিহাস pdf রাজনীতি ও রাষ্ট্রচিন্তা pdf বেলা ফুরাবার আগে pdf সেলস এন্ড মার্কেটিং বই পিডিএফ অফিস পলিটিক্স বই pdf দর্শনকোষ pdf অসমাপ্ত আত্মজীবনী pdf বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রাম pdf বাংলাদেশ রাজনীতির ৫০ বছর pdf প্লেটোর রিপাবলিক pdf রাষ্ট্রবিজ্ঞানের কথা pdf রামতনু লাহড়ী ও তৎকালীন সমাজ pdf আমার দেখা রাজনীতির পঞ্চাশ বছর ২৬৩ টি ইসলামী বই pdf Download আমার ফাঁসি চাই pdf - সাংবাদিকতা ধারণা ও কৌশল pdf Digital marketing book pdf rapidex english speaking course pdf spoken english to bangla pdf hackers black book pdf free download ছায়ামঞ্চ gk pdf download mp3 all book pdf termux tutorial bangla pdf
No Comment

You cannot comment with a link / URL. If you need backlinks then you can Contact with us

Add Comment
comment url