Home

রবির আশ্রমে কেন্দ্রীয় জওয়ান, নিরাপত্তার দায়িত্বে CISF

এই সময় ডিজিটাল ডেস্ক: অদূর ভবিষ্যতেই বিশ্বভারতীর নিরাপত্তা সামলাবেন জওয়ানরা৷ বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের অনুরোধ মেনে নিয়ে মানবসম্পদ উন্নয়নমন্ত্রক এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে৷ রবীন্দ্রনাথের শান্তিনিকেতন দেখভাল করবেন জওয়ানরাই। মন্ত্রক সূত্রে বলা হয়েছে, বিশ্বভারতী ছাড়াও অতীতে কিছু কেন্দ্রীয় সরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান একই অনুরোধ করেছিল৷ এর মধ্যে কিছু আইআইটিও ছিল৷ কিন্তু মন্ত্রকের পক্ষ থেকে প্রথমেই তাঁদের খরচের কথাটা জানিয়ে দেওয়া হয়েছিল৷ তখন তারা পিছিয়ে যায়৷ কারণ, সিআইএসএফ জওয়ানদের খরচ ওই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকেই বহন করতে হয়৷ সূত্রের খবর, একেক জন আধা সামরিক বাহিনীর জওয়ানকে মোতায়েন করতে গেলে ৮০ হাজার থেকে এক লাখ টাকা খরচ হয়৷ তাঁদের বেতন, থাকা-খাওয়া সবকিছুরই খরচ সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানকে দিতে হয়৷ বিশ্বভারতীও ইউজিসি-র কাছ থেকে যে টাকা পায়, তা দিয়ে এই খরচ সামলাবে৷ তবে সিআইএসএফ জওয়ানদের শান্তিনিকেতনে গিয়ে বিশ্বভারতীর নিরাপত্তা দেওয়ার কাজটা শুরু করতে এখনও কিছুদিন সময় লাগবে৷ সিআইএসএফের সূত্রে জানা গিয়েছে, তাঁদের কাছে মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রকের কাছ থেকে অনুরোধ চলে এসেছে৷ কিন্তু এ বার তাঁরা বিষয়টি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রককে জানাবেন৷ সেখান থেকে অনুমোদন এলে শান্তিনিকেতনে গিয়ে দেখবেন, কতজন জওয়ান লাগবে নিরাপত্তা দেওয়ার জন্য৷ এমন নয় যে, বিশ্বভারতীকে সিআইএসএফ জওয়ান দিয়ে ছেয়ে ফেলা হবে৷ কারণ, এটা তো কোনও সংঘর্ষক্ষেত্র নয়৷ তবে নিরাপত্তার জন্য প্রয়োজনীয় সংখ্যক জওয়ান অবশ্যই মোতায়েন করা হবে৷ শান্তিনিকেতন ঘুরে এসে তাঁরা আবার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের কাছে জানাবেন, কতজন জওয়ান দরকার৷ তার পর সেই চূড়ান্ত অনুমোদন এসে গেলে জওয়ানরা নিরাপত্তার দায়িত্ব নেবেন৷ প্রশ্নটা হল, প্রায় সব কেন্দ্রীয় বিশ্ববিদ্যালয়ই বেসরকারি রক্ষী নিয়োগ করে, তারাই নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকে৷ দিল্লিতে যে দু’টি কেন্দ্রীয় বিশ্ববিদ্যালয় আছে, সেই জওহরলাল নেহরু ও দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়েও বেসরকারি রক্ষীরাই নিরাপত্তা দেয়৷ এই দুই বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্তৃপক্ষ কেন্দ্রীয় বাহিনী চেয়ে কোনও আবেদনও করেননি৷ তা হলে বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষ কেন করলেন? মন্ত্রক সূত্রে বলা হচ্ছে, সেই জবাব বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষই দিতে পারবেন৷ এখন বিশ্বভারতীতেও বেসরকারি রক্ষীই নিয়োগ করা আছে৷ কিন্তু তা নিয়ে কিছু সমস্যা হচ্ছে বলে বিশ্ববিদ্যালয়ের তরফে জানানো হয়েছে৷ ঠিক কী ধরনের সমস্যা? বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রককে যা জানিয়েছেন, তার মোদ্দা কথা হল, বেসরকারি রক্ষীদের দিয়ে কাজ হচ্ছে না৷ তারা কোনও নিরাপত্তাই দিতে পারছে না৷ কোনও বিরোধ রাজনৈতিক চেহারা নিলে তারা নিষ্ক্রিয় হয়ে যায়৷ মোট কথা, তাঁদের দিয়ে কোনও লাভই হচ্ছে না৷ প্রশ্নটা হল, বিশ্বভারতীর অবস্থা কি এতটাই খারাপ যে, সেখানে সিআইএসএফ নিয়োগ করতে হবে? বিশেষ করে, তাঁদের নিয়োগের ক্ষেত্রে একটা বিপুল অর্থ কর্তৃপক্ষকে খরচ করতেে হবে৷ টাকা নেই বলে সম্প্রতি ছাত্রছাত্রীদের ফি বাড়ানো হয়েছে৷ অন্য অনেক ক্ষেত্রে খরচ কমানো হয়েছে৷ গবেষকদের এ নিয়ে প্রচুর ক্ষোভ রয়েছে৷ অশিক্ষক কর্মীদের বকেয়া মেটানো নিয়েও সমস্যা রয়েছে৷ এ হেন পরিস্থিতিতে সিআইএসএফ জওয়ানরা বিশ্বভারতীতে নিরাপত্তা দিতে আসবেন৷ বিশ্বভারতীর নিরাপত্তায় কেন্দ্রীয় বাহিনীর খবর চাউর হতেই ইতিমধ্যে জল্পনা শুরু হয়েছে শান্তিনিকেতনে। বিশ্বভারতীর উপাচার্য বিদ্যুৎ চক্রবর্তীর কাছে এ ব্যাপারে জানতে চাওয়া হলে তাঁর মন্তব্য, ‘আমি মিটিংয়ে আছি। যা বলার পিআরও বলবেন।’ বিশ্বভারতীর জনসংযোগ আধিকারিক অনির্বাণ সরকার বলেন, ‘আমরা এখন কনভোকেশন নিয়ে ভাবছি। সিআইএসএফ নিয়ে আমাদের কাছে কোনও কিছু আসেনি।’ রবীন্দ্র পরিবারের সদস্য সুপ্রিয় ঠাকুরের কথায়, ‘আমার আশ্চর্য লাগছে। এর কোনও প্রয়োজন ছিল কি না, বুঝতে পারছি না।’ প্রবীণ আশ্রমিক অমিত্রসূদন ভট্টাচার্য বলেন, ‘বিশ্বভারতীর নিরাপত্তা কেন্দ্র করুক বা রাজ্য করুক, সেটা বড় বিষয় নয়। শান্তিনিকেতন সুরক্ষিত থাকুক। বাইরের কিছু পাহারাদার হলেই সব হবে না। দরকার ভিতরের মানুষগুলোর সদিচ্ছা।’ বিশ্বভারতী কর্মিসভার সভাপতি গগন সরকারের মন্তব্য, ‘এটা কোনও কলকারখানা নয়। এটা গুরুদেবের মুক্ত শিক্ষাঙ্গন। এখানে সিআইএসএফ কেন?’ দিল্লিতে যে দু’টি কেন্দ্রীয় বিশ্ববিদ্যালয় আছে, সেই জওহরলাল নেহরু ও দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়েও বেসরকারি রক্ষীরাই নিরাপত্তা দেয়৷ এই দুই বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্তৃপক্ষ কেন্দ্রীয় বাহিনী চেয়ে কোনও আবেদনও করেননি৷ তা হলে বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষ কেন করলেন? মন্ত্রক সূত্রে বলা হচ্ছে, সেই জবাব বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষই দিতে পারবেন৷ এখন বিশ্বভারতীতেও বেসরকারি রক্ষীই নিয়োগ করা আছে৷ কিন্তু তা নিয়ে কিছু সমস্যা হচ্ছে বলে বিশ্ববিদ্যালয়ের তরফে জানানো হয়েছে৷ ঠিক কী ধরনের সমস্যা? বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রককে যা জানিয়েছেন, তার মোদ্দা কথা হল, বেসরকারি রক্ষীদের দিয়ে কাজ হচ্ছে না৷ তারা কোনও নিরাপত্তাই দিতে পারছে না৷ কোনও বিরোধ রাজনৈতিক চেহারা নিলে তারা নিষ্ক্রিয় হয়ে যায়৷ মোট কথা, তাঁদের দিয়ে কোনও লাভই হচ্ছে না৷ প্রশ্নটা হল, বিশ্বভারতীর অবস্থা কি এতটাই খারাপ যে, সেখানে সিআইএসএফ নিয়োগ করতে হবে? বিশেষ করে, তাঁদের নিয়োগের ক্ষেত্রে একটা বিপুল অর্থ কর্তৃপক্ষকে খরচ করতেে হবে৷ টাকা নেই বলে সম্প্রতি ছাত্রছাত্রীদের ফি বাড়ানো হয়েছে৷ অন্য অনেক ক্ষেত্রে খরচ কমানো হয়েছে৷ গবেষকদের এ নিয়ে প্রচুর ক্ষোভ রয়েছে৷ অশিক্ষক কর্মীদের বকেয়া মেটানো নিয়েও সমস্যা রয়েছে৷ এ হেন পরিস্থিতিতে সিআইএসএফ জওয়ানরা বিশ্বভারতীতে নিরাপত্তা দিতে আসবেন৷ বিশ্বভারতীর নিরাপত্তায় কেন্দ্রীয় বাহিনীর খবর চাউর হতেই ইতিমধ্যে জল্পনা শুরু হয়েছে শান্তিনিকেতনে। বিশ্বভারতীর উপাচার্য বিদ্যুৎ চক্রবর্তীর কাছে এ ব্যাপারে জানতে চাওয়া হলে তাঁর মন্তব্য, ‘আমি মিটিংয়ে আছি। যা বলার পিআরও বলবেন।’ বিশ্বভারতীর জনসংযোগ আধিকারিক অনির্বাণ সরকার বলেন, ‘আমরা এখন কনভোকেশন নিয়ে ভাবছি। সিআইএসএফ নিয়ে আমাদের কাছে কোনও কিছু আসেনি।’ রবীন্দ্র পরিবারের সদস্য সুপ্রিয় ঠাকুরের কথায়, ‘আমার আশ্চর্য লাগছে। এর কোনও প্রয়োজন ছিল কি না, বুঝতে পারছি না।’ প্রবীণ আশ্রমিক অমিত্রসূদন ভট্টাচার্য বলেন, ‘বিশ্বভারতীর নিরাপত্তা কেন্দ্র করুক বা রাজ্য করুক, সেটা বড় বিষয় নয়। শান্তিনিকেতন সুরক্ষিত থাকুক। বাইরের কিছু পাহারাদার হলেই সব হবে না। দরকার ভিতরের মানুষগুলোর সদিচ্ছা।’ বিশ্বভারতী কর্মিসভার সভাপতি গগন সরকারের মন্তব্য, ‘এটা কোনও কলকারখানা নয়। এটা গুরুদেবের মুক্ত শিক্ষাঙ্গন। এখানে সিআইএসএফ কেন?’



Credit eisamay

bangla news,bangla news today,latest bangla news,bangla news 24,all bangla news,bangla news live,bd news,bangla news update,news bangla,bangladesh news today,news,bangladeshi news,bangladesh tv news,news live,bangla tv news,breaking news,etv bangla news,bangla news 2019,bangla live news,today bangla news,atn baagla news,www bangla news today,24 ghanta bangla news,bangla latest news update,news bangla,bangla news,atn bangla khobor,bangla news today,all bangla channel live,abp ananda bangla khabar,latest bangla news,bangla,ajker khobor,bangla tv,atn bangla songbad,all bangla tv,tv atn bangla,west bengal,bangla tv live,live bangla channel,etv bangla news,etv news bangla,live gtv bangla,bd tv atn bangla,bangla all news,bangla news live,bangla live news,live news bangla,banlgla video news,bangla news today,latest bangla news,bangla news,today bangla news,news bangla,bangla news update,bangla news live,bangla news video,bd news,today news bangla,news,bangla news 24,bd news today,bangladesh news,bangla forex news site,news portal website,news live,bd news bangla,news18 bangla live,modi news bangla,news18 bangla,india news bangla,world news bangla,free bangla blog site,latest news bangla,

আমাদের এই ব্লগে আপনি ও লিখতে পারবেন । এর জন্য আপনি আপনার লিখা আমাদেরকে ইমেইল করতে পারেন । অথবা আমাদের একজন সদস্য হয়ে ও পোস্ট করতে পারবেন । আমাদের ওয়েবসাইট এর সদস্য হতে চাইলে ভিসিট করুন । আপ্বনার লিখা অবস্যয় শিক্ষনীয় হতে হবে । আমাদের ইমেইল ঠিকানা support@mrlaboratory.com
Share This

0 Response to "রবির আশ্রমে কেন্দ্রীয় জওয়ান, নিরাপত্তার দায়িত্বে CISF"

Post a Comment

এই পোষ্ট টি কেমন লেগেছে আপনার মুল্যবান মতামত লিখুন ।

Popular Posts